Nil Ghurni(Bengali)

Front Cover
Patra Bharati, Aug 31, 2016 - Fiction - 179 pages
0 Reviews

 "ছেলেটি ছুটছে। ছুটছে সে ঝড়ের বেগে। ছুটতে-ছুটতে একসময় সে হাঁফ ছাড়ল, যাক, জঙ্গল শুরু হল।

পেছন থেকে কানে আসছে বহু কণ্ঠের হল্লা-চিৎকার, ছোট, ছোট! জঙ্গলের দিকে গেছে।
সমস্ত চিৎকার ছাপিয়ে একজনের কর্কশ হেঁড়ে গলা শোনা যায়, থামিস নে! থামিস নে! সড়কি দিয়ে প্রায় গেঁথে ফেলেছিলাম, একটুর জন্যে ফসকে গেল। নির্ঘাত জখম হয়েছে। ছোট-জোরে-ছোট! জঙ্গলে গেলে জঙ্গলে গিয়েই ধরব। কোথায় যাবে?...
তারপর?...
অবিস্মরণীয় নীল বিদ্রোহকে কেন্দ্র করে রক্তে-দোলা-জাগানো উপন্যাস 'নীল ঘূর্ণি'। ব্রিটিশ রাজশক্তির বিরুদ্ধে বাংলার লক্ষ-লক্ষ কৃষক জীবন বাজি রেখে সংঘবদ্ধ হয়ে হাতিয়ার তুলে নিয়েছিলেন, এ কাহিনি তারই এক অনন্য দলিল। একদিকে সীমাহীন অত্যাচার-নিপীড়ন-শোষণ, অন্যদিকে কাশীনাথ আর ফকিরদাদুর প্রত্যাঘাতের প্রস্তুতি।
দীনেশচন্দ্রের জাদু-লেখনীর মুন্সিয়ানায় দুরন্ত গতিতে এগিয়ে চলে উপন্যাস, রক্ত টগবগ করে ফুটতে থাকে রুদ্ধশ্বাস পাঠকের।"
 

What people are saying - Write a review

We haven't found any reviews in the usual places.

Selected pages

Contents

Section 1
Section 2
Section 3
Section 4
Section 5
Section 6
Section 7
Section 8
Section 11
Section 12
Section 13
Section 14
Section 15
Section 16
Section 17
Section 18

Section 9
Section 10
Section 19
Copyright

Common terms and phrases

অনেক অবসথা আগে আছে আজ আবার আমরা আমাদের আমার আমি আর আরও আসছে আসে ইংরেজ উঠল এই এক একটা একটু এখন এত এবার এমন এল এসে ওই ওঠে ওদের ওপর ওরা কণঠে কত কথা করছে করতে করা করার করে করেছে কাছে কাজ কারলো কাশী কাশীর কি কিছু কিনতু কী কুঠির কেন কোথায় কোনও খবর গিয়ে গেছে গেল চলে চোখ চোখে চোখের ছিল জঙগল জঙগলের জনযে জিগযেস ঠিক তখন তা তাই তাকে তাদের তার তারপর তারা তাহলে তুমি তো তোর থাকে থেকে দরকার দল দলের দানী দিকে দিন দিয়ে দেখা দেখে ধরে নয় না নাকি নায়েব নিজের নিয়ে নীলকরদের নীলের নে নেই পডে পর পরায় পরে পারে ফকির ফকিরের ফিরে বড বলতে বললে বলে বসে বা বুঝতে বেশ ভাই মতো মধযে মনে মাথা মাথায় যা যাবে যায় যে যেন রায়তদের লোক শুধু শুরু শেষ সঙগে সব সবাই সময় সে সেই হঠাৎ হবে হয় হয়ে হয়েছে হল হাত হাতে হিলস

About the author (2016)

জন্ম ২৭ জানুয়ারি, ১৯১৭ - শিক্ষা এম.এ. (ইংরাজি সাহিত্য) কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। সংগ্রামী জীবন। তারই প্রতিফলন দীনেশচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের সমগ্র সৃষ্টিতেও। কৈশোরে সশস্ত্র স্বাধীনতা-সংগ্রামের পথ ধরে যৌবনে গ্রহণ করেন বৈজ্ঞানিক মতাদর্শ। পেশাগত ভাবে গ্রহণ করেন প্রকাশন ব্যবসা। প্রথম সাহিত্য স্বীকৃতি ১৯৬২ সালে, ভয়ঙ্করের জীবন-কথা ভূষিত হয় 

রাষ্ট্রীয় পুরস্কারে। বহুদিনের লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়িত হয় ১৯৬৮ সালে। দীনেশচন্দ্রের সম্পাদনায় প্রকাশিত হল কিশোর ভারতী। উৎসারিত হল এক জাদুকরী লেখনীর ঝরনা। সাড়া পড়ে যায় পাঠকমহলে। ১৯৮৭ সালে দীনেশচন্দ্র সম্মানিত হলেন বিদ্যাসাগর পুরস্কারে। দীর্ঘজীবনে তিনি পেয়েছেন আরও অনেক পুরস্কার ও সম্মান। প্রকাশিত গ্রন্থ : দুরন্ত ঈগল, নীল ঘূর্ণি, কালের জয়ডঙ্কা বাজে, ভাবা সমগ্র, প্রথম পুরুষ, চিরকালের গল্প, ভয়ঙ্করের জীবন-কথা, মানুষ-অমানুষ, ভারত গল্পকথা, দীনেশচন্দ্র রচনাসংগ্রহ...ইত্যাদি। জীবনাবসান ১০ ফেব্রুয়ারি, ১৯৯৫ 

Bibliographic information